Articles

সবার আগে নিরাপত্তা

ইন্টারনেটের ব্যবহার দৈনন্দিন কাজগুলোকে সহজ করে দিয়েছে। পারস্পরিক যোগাযোগ, তথ্য আদান-প্রদান, কেনাকাটার মতো কাজগুলো ইন্টারনেটের বদৌলতে আগের তুলনায় অনেক কম সময়ে করা সম্ভব হচ্ছে। পরিসংখ্যানও বলে দিচ্ছে দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা দ্রুতগতিতে বেড়ে চলছে। আর ওয়েবসাইটগুলো নিয়মিত দেখার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের আরও সচেতন হওয়া প্রয়োজন। সুনির্দিষ্টভাবে বলতে গেলে ই-মেইল, অনলাইনে কেনাকাটা, ফেসবুক, টুইটার বা গুগল প্লাসের মতো সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো জনপ্রিয়তা পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ব্যক্তিগত গোপনীয়তা ও নিরাপত্তার বিষয়গুলো নতুন করে ভাবতে হচ্ছে ব্যবহারকারীদের।

সফটওয়্যার ও অ্যাপ ইনস্টলে সতর্কতা
কম্পিউটার বা মোবাইল যে যন্ত্রের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহার করা হচ্ছে, প্রথমে সেটির সুরক্ষা প্রয়োজন। যতগুলো সফটওয়্যার বা অ্যাপ ইনস্টল করা আছে সেগুলো নির্দিষ্ট কী কী কাজের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে, তা জানা থাকতে হবে। নতুন কম্পিউটার কেনার পরে না চাইতেই অনেক অনেক সফটওয়্যার ইনস্টল করে দেওয়া হয়, কিন্তু সেগুলোর কোনো প্রয়োজন আছে কি না, সেটি জেনে নেওয়া উচিত।

স্মার্টফোনে অ্যান্টিভাইরাস কি জরুরি?

স্মার্টফোনে অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপ কতটা প্রয়োজনীয়? নতুন ফোন কেনার পর প্রথমেই কি অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপ ইনস্টল করতে হবে? অথবা অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপগুলো ব্যবহারকারীদের কতটা নিরাপদ রাখতে পারে? এই ধরনের প্রশ্নগুলো প্রায় সব স্মার্টফোন ব্যবহারকারীই করে থাকেন।
অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপ ইনস্টল করা প্রয়োজনীয় কি না, এর সরাসরি উত্তর শুধু হ্যাঁ অথবা না দিয়ে দেওয়া যাবে না। স্মার্টফোন ব্যবহারের ওপর অনেকাংশে নির্ভর করে এটি। অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রাম বা অ্যাপ ইনস্টল করা বাধ্যতামূলক নয় আবার অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপ থাকলেও যে সেটি সবকিছু থেকে নিরাপদ রাখবে, এমন নয়।

শিখিয়া করিও কাজ

‘আউটসোর্সিং’, ‘ফ্রিল্যান্স’, ‘আয় করুন বৈদেশিক মুদ্রা ঘরে বসেই’ ইত্যাদি শব্দ বা বাক্যের সঙ্গে এখন অনেকেই পরিচিত। বিশেষ করে তরুণ প্রজন্ম। এই বিষয়গুলো নানা সময় নানাভাবে প্রকাশিত ও প্রচারিত হয়ে থাকে। তরুণদের অনেকেই মনে করেন ইন্টারনেটের মাধ্যমে আউটসোর্সিংয়ের কাজ করলেই বুঝি কাঁড়ি কাঁড়ি ডলার আসতে থাকবে। কিন্তু আউটসোর্সিংয়ের কাজে সাফল্যের খবর যেমন জানা যায়, ব্যর্থতার খবর তেমন নয়। প্রকৃতপক্ষে ফ্রিল্যান্স আউটসোর্সিংয়ে ব্যর্থতার ঘটনা অনেক বেশি। কাজের ক্ষেত্রে দক্ষতা অর্জন ছাড়া অনলাইনে আয় করা সম্ভব নয়। শুরুর আউটসোর্সিং বিষয়টা সম্পর্কে জানতে হবে। লিখেছেন নাসির খান

মুক্ত লাইসেন্সের আসর

ক্রিয়েটিভ কমন্স হলো এমন একটি প্রতিষ্ঠান, যারা সৃজনশীল শিল্পকর্ম এবং মেধাভিত্তিক প্রকাশের ক্ষেত্রে আইনি সহায়তা দিয়ে থাকে। ক্রিয়েটিভ কমন্সের কপিরাইট লাইসেন্সগুলোর মাধ্যমে সহজেই ব্যবহারকারীরা তাঁদের কাজগুলো ছড়িয়ে দিতে পারেন। এতে নিজের কাজ সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়া দেওয়া যায়, অন্যদের ব্যবহার করতে দেওয়া যায়। এতে নতুন সৃষ্টিতে অন্যকেও উৎসাহিত করা যায়। ক্রিয়েটিভ কমন্স (সিসি) লাইসেন্সগুলো স্থানীয় কপিরাইট লাইসেন্সের বিকল্প নয় বরং দুটি লাইসেন্সই একই সঙ্গে ব্যবহার করা যায়।


গত ১৪ থেকে ১৭ অক্টোবর দক্ষিণ কোরিয়ার সিউলে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ক্রিয়েটিভ কমনসের ‘গ্লোবাল সামিট ২০১৫’। দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় জাদুঘরে আয়োজন করা হয়েছিল এই সম্মেলন। চার দিনের এই সম্মেলনে অংশ নিয়েছেন ৫০০ অতিথি। ৮০টি দেশ থেকে ক্রিয়েটিভ কমন্সের প্রতিনিধিরা এ সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন।


সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আকস্মিকভাবে যোগ দিয়েছিলেন ক্রিয়েটিভ কমন্সের প্রতিষ্ঠাতা লরেন্স লেসিগ। তিনি এবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে একজন প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। সম্মেলনের প্রথম দিনটি ছিল ক্রিয়েটিভ কমন্সের প্রতিনিধিদের জন্য। এখন যেসব কার্যক্রম চলছে, সেগুলো কীভাবে আরও কার্যকর করা যায়, সে বিষয়ে দিনভর আলোচনা চলে। পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের সফল ও চলমান প্রকল্পগুলো দেখানো হয়।

Image
Image
© 2018 JoomShaper, All Right Reserved